Tuesday, January 22, 2019
সর্বশেষ সংবাদ
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল হবে না: আইনমন্ত্রী         বিরোধীদের নির্মূলে সরকার মরিয়া: মির্জা আলমগীর         পুনঃনির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনে নামছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বাম জোট         বন্দিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ ৩ দিন বন্ধ থাকবে         কোম্পানীগঞ্জে গর্তে পড়ে আবারো এক শ্রমিক নিহত         সিসিকের বকেয়া বিল আদায় অভিযান অব্যাহত, ৭ দিনে ৩৩ লাখ টাকা আদায়         ছড়া-খাল দখলকারীরা যত বড় প্রভাবশালী হোক, তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা-সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী         নগরীতে ‘বৈকালিক সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন’ টিকাদান কর্মসূচিতে বিশ্বে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল—সিসিকের প্রধান নির্বাহী         চার দেশে আশ্রয় চাইলেন আলোচিত সৌদি যুবতী কুনুন         ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২: স্থগিত ৩ কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ চলছে        

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস সীমান্ত থেকে ১৮ বাংলাদেশি গ্রেফতার

মেক্সিকো: চলতি সপ্তাহে আরো ১৮ জন বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করেছে আমেরিকার টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের লারেডো সেক্টর বর্ডার পেট্রোলকর্মীরা। পৃথক ঘটনায় এই ব্যক্তিদের গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার মেক্সিকোর নুয়েভো লারেডো সঙ্গে রিও গ্র্যান্ডে নদী পার হওয়ার সময় ৯ অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়। লারেডো সেক্টরের কর্মকর্তারা জানান, আরো একটি দল সীমান্ত পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে জানতে পারেন তারা।

কর্মকর্তারা আরো জানান, চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে অবৈধ বাংলাদেশিদের আরো দুটি দলকে গ্রেফতার করেছে লারেডো স্টেশনের কর্মীরা। গত সোম ও মঙ্গলবার অবৈধভাবে সীমান্ত পাড়ি দেয়ার সময় ৯ বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়।

সেক্টর কর্মকর্তারা আরো জানান, কেবল লারেডো সেক্টর দিয়েই গত বছরের ১ অক্টোবর থেকে চলতি মাস পর্যন্ত ২৭৪ জন বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসব ব্যক্তিদের অধিকাংশই মেক্সিকোর দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানান, ২৭৪ জনকে গ্রেফতার ছাড়াও রিও গ্র্যান্ডে নদী থেকে এক বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার করেছেন তারা। ওই ব্যক্তি নদীতে ডুবে মারা গেছেন বলে জানান।

পরে কর্মকর্তারা ওই মরদেহ ওয়েব কাউন্টি মেডিকেল এক্সামিনারের কাছে শনাক্তের জন্য হস্তান্তর করেন। মেডিকেল পরীক্ষা শেষে তারা জানান, ওই মৃত ব্যক্তি একজন বাংলাদেশি।

আমেরিকার কর্মকর্তারা জানান, ওই এলাকা দিয়ে বাংলাদেশি নাগরিকদের আমেরিকায় অনুপ্রবেশের বিশেষ কোনো কারণ নেই। তবে মানবপাচারকারী চক্ররাই মূলত ওই রুটটি নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। তারাই ঠিক করে দেয় কারা কোন পথে সীমান্ত অতিক্রম করবে।

উল্লেখ্য, মানব পাচারকারী চক্র প্রথমে বাংলাদেশিদের দক্ষিণ আমেরিকা পাঠায় সেখান থেকে মেক্সিকো হয়ে আমেরিকায় প্রবেশ করে এসব অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীরা। পুরো প্রক্রিয়ার জন্য মানবপাচারকারী জনপ্রতি ২৭ হাজার ডলার পর্যন্ত অর্থ নিয়ে থাকে।

সর্বশেষ সংবাদ