বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চুনারুঘাটে চা পাতা ওজনের সময় কর্তন, ২ ঘণ্টা কর্মবিরতি



চুনারুঘাট: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার লস্করপুর বাগানে চা শ্রমিকদের চা পাতা ওজনের সময় ৪ থেকে ৬ কেজি পাতা কর্তন করে ওজনের কম দেন বাগানের বাবু নিপেন। তার প্রতিবাদে চা বাগানের অফিস প্রাঙ্গণে এসে অবস্থান নেন চা শ্রমিকরা।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত চা বাগানের অফিস প্রাঙ্গণে অবস্থান নিয়ে বাগানের ম্যানেজার আরিফ আহমেদের কাছে চা পাতা কর্তনের ব্যাপারে জানতে চান শ্রমিকরা। এই ঘটনায় আজ ২ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেন লস্করপুর চা বাগানের শ্রমিকরা।

এসময় চা শ্রমিকরা দাবি করেন নিপেন বাবু যেন বাগান থেকে চলে যান এবং চা পাতা যেন ডিজিটালে মেশিনে ওজন করা হয়। এছাড়া বাগানের শিক্ষিত কোন মহিলা চা শ্রমিক যেন ওজনের বিষয়টা প্রতিদিন খেয়াল করেন সে বিষয়ে বাগান কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন চা শ্রমিকরা।

শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ২৪ জুন দুপুর সাড়ে ১২টায় বাগানের ১৭ নম্বর শেড ঘরে চা পাতা ওজন দেওয়ার সময় ৪ থেকে ৬ কেজি চা পাতা কর্তন করেন বাগানের বাবু নিপেন। এই বিষয়টি চা শ্রমিকের সন্তান প্রসাদ চৌহান দেখেন। তখন তার মনে হয় এভাবেতো চা পাতা কর্তনের নিয়ম নেই। তাই সে বাবু নিপেনকে প্রশ্ন করে তিনি কেন পাতা কর্তন করে ওজনে কম দিচ্ছেন। কোথায় থেকে এর অনুমতি পেয়েছেন। তখন নিপেন জানান চা বাগানের ম্যানেজার এবং চা শ্রমিকরা বিষয়টা জানেন। প্রসাদ চৌহান তখন চা শ্রমিকদের কাছে এ বিষয়ে  জানতে চাইলে চা শ্রমিকরা বিষয়টা অস্বীকার করেন। পরবর্তীতে ২৫ জুন দুপুরে পাতা ওজনের সময় সেকশনের কাজে নিয়োজিত থাকা নিপেন বাবু প্রত্যক্ষ ভাবে বাগান ম্যানেজার আরিফ আহমেদের কাছে অভিযোগ করেছে প্রসাদ নামের এক ছেলে তার খারাপ ব্যবহার করেছেন।  চা শ্রমিকদের উপস্থিতিতে প্রসাদকে গালি দেন।

এ ব্যাপারে লস্করপুর চা বাগানের ম্যানেজার আরিফ আহমেদ বলেন, যে ১ কেজি চা পাতা কাটারও অনুমতি দেওয়া হয় নাই বাবুকে। এবং নিপেন বাবুর গালিগালাজ করার জন্য চা শ্রমিকদের কাছে আমি অনুতপ্ত।

চা শ্রমিকদের এইসব দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে ম্যানেজার আরিফ আহমেদ বলেন, পরবর্তী সময়ে যদি কোন বাবু এক কেজিরও বেশি পাতা কর্তন করে তাহলে তাকে বাগান থেকে বহিষ্কার করা হবে।